সাদমানের সঙ্গে জুটি বাঁধছেন কে?
০৭ ডিসেম্বর, ২০২১ ০৮:২৪ পূর্বাহ্ন

  

সাদমানের সঙ্গে জুটি বাঁধছেন কে?

Online Reporter
২৫-১১-২০২১ ০৩:২৬ অপরাহ্ন
সাদমানের সঙ্গে জুটি বাঁধছেন কে?

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পাল্লেকেল্লেতে সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিলেন তামিম ইকবাল। এরপর জিম্বাবুয়ে সফরে গেলেও ইনজুরির কারণে টেস্ট ম্যাচ খেলেননি। একই কারণে পাকিস্তানের বিপক্ষেও টেস্ট সিরিজ খেলা হচ্ছে না। তামিম থাকলে নতুন করে ওপেনিং জুটি নিয়ে ভাবনার কিছু থাকতো না। কিন্তু তার অনুপস্থিতিতে সাদমানের সঙ্গী নিয়ে বিস্তর ভাবতে হচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্টেকে। পাকিস্তানের বিপক্ষে সাগরিকায় ওপেনিংয়ে সাদমানের সঙ্গী কে হচ্ছেন? অবশ্য এই পজিশনে সাইফ হাসানের চেয়ে অনেকটাই এগিয়ে আছেন মাহমুদুল হাসান জয়।

জিম্বাবুয়েতে সর্বশেষ টেস্টেও সাদমানের সেঞ্চুরি আছে। নিশ্চিতভাবে পাকিস্তানের বিপক্ষেও সাদমান থাকছেন। ইনজুরিতে বেশ কিছু ম্যাচ মিস না করলে গত দশ ম্যাচের সবগুলোতেই তিনি নিশ্চিতভাবে একাদশে থাকতেন। তবে তামিম যেসব ম্যাচ খেলেননি, সেসব ম্যাচগুলোতে সাদমানের সঙ্গে কখনও সৌম্য, কখনও সাইফ, কখনোবা ইমরুল কায়েস-লিটনরা ওপেনিং করেছেন। এবারও সাদমানের নিয়মিত সঙ্গী না থাকায় ওপেনিং জুটি নিয়ে আলোচনা চলছে।

সাদমানের সঙ্গী হিসেবে প্রথম টেস্টের স্কোয়াডে যুক্ত করা হয়েছে যুব বিশ্বকাপজীয় দলের টপ অর্ডার ব্যাটার মাহমুদুল হাসান জয়কে। এছাড়া সাইফ হাসানতো আগে থেকেই যুক্ত ছিলেন। ৫টি টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা আছে এই ব্যাটারের। যদিও এই ফরম্যাটে নিজেকে এখনও প্রমাণ করতে পারেননি। পাশাপাশি পাকিস্তানের বিপক্ষে কুড়ি ওভারের ফরম্যাটে অভিষেক হওয়া সাইফকে সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটেও বেশ নড়বড়ে দেখা গেছে। সবমিলিয়ে টেস্টের পারফরম্যান্স ও সাম্প্রতিক অবস্থায় চট্টগ্রামের টেস্টের ওপেনিং তালিকায় সাইফের চেয়ে খানকিটা এগিয়ে জয়।

পরিসংখ্যানও সাইফকে বেশ পিছিয়ে রাখবে। ৫ টেস্ট খেলা সাইফ হাসান এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ রান করতে পেরেছেন ৪৩। প্রতি ইনিংসে সবার আগে সাজঘরে ফেরার দায়িত্বটা যেন তিনিই নিয়ে রেখেছেন! ফলে সাইফের বিদায়ে ওপেনিংয়ে বড় জুটি পাচ্ছে না বাংলাদেশ। তার ৫ টেস্টের মধ্যে সর্বোচ্চ ওপেনিং জুটি ৮৮ রানের। গত জুলাইয়ে হারারেতে সাইফ-সাদমান মিলে এই জুটি গড়েছিলেন। এই পরিসংখ্যান কিছুটা আশা জাগালেও চট্টগ্রাম টেস্টে ওপেনিংয়ে পরিবর্তনের আভাস মিলেছে অনুশীলনে।

বুধবার দলের আনুষ্ঠানিক অনুশীলনে পাশাপাশি নেটে শুরুতেই নেমেছিলেন সাদমান ও জয়। বৃহস্পতিবারও একই চিত্র দেখা গেছে। জয়কে নিয়ে নতুন বল, পুরনো বলে আলাদাভাবে কাজ করেছেন কোচরা। বৃহস্পতিবার মিডিয়া বক্সের সামনের দুটি নেটে ব্যাটিং কোচ অ্যাশওয়েল প্রিন্সও এই তরুণকে নিয়ে বাড়তি কাজ করেছেন। সময় দিয়েছেন প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও। 

পরে সাইফকে নিয়েও কাজ করতে দেখা গেছে তাদের। ব্যাটিং কোচ অ্যাশওয়েল প্রিন্স ব্যক্তিগতভাবে কাজ করার পর ক্রমান্বয়ে একই নেটে সাদমান, সাইফ ও জয়কে নিয়ে কাজ করেছেন। এই সময়টাতে পাখির চোখে পরখ করছিলেন এই তিন ব্যাটারের ব্যাটিং। মাঝখানের বিরতিতে সাদমান-সাইফকে কিছুক্ষণ পরামর্শও দিয়েছেন প্রিন্স। মাহমুদুল তখন ব্যাটিং করে ড্রেসিংরুমের দিকে ফিরে গেছেন।

এই পরিস্থিতিতে চট্টগ্রাম টেস্টের একাদশে ওপেনার হিসেবে কাকে দেখা যাবে সেটি জানতে অপেক্ষা করতে হবে টসের আগ পর্যন্ত। শুক্রবার সকালে উইকেট দেখেই মূলত সিদ্ধান্ত নেবে টিম ম্যানেজমেন্ট। তবে দলের অনুশীলন, বর্তমান পরিস্থিতি পর্যালোচনা করলে সাদমানের সঙ্গে ওপেনিং জুটি বাঁধার ক্ষেত্রে জয় অনেকটাই এগিয়ে আছেন। কেননা যুব বিশ্বকাপজয়ী এই ব্যাটার প্রতিশ্রুতিশীল ক্রিকেটার। পাশাপাশি জাতীয় লিগে তার পারফরম্যান্সও দারুণ। জাতীয় লিগে তিন ম্যাচে করেছেন দুই সেঞ্চুরি। আরেকটিতেও সেঞ্চুরির কাছাকাছি গিয়েছিলেন। সেই তুলনায় সাইফের পারফরম্যান্স বেশ হতাশাজনকই!

দলের অধিনায়ক মুমিনুল স্পষ্ট করে কিছু না বলেলেও এতটুকু জানিয়েছেন যে, ওপেনার হিসেবে তাদের ভাবনায় বেশ ভালোভাবেই তরুণ এই ব্যাটার আছেন, ‘জয়কে কিন্তু আপাতত ব্যাকআপ ওপেনার হিসেবেই আমরা নিয়েছি। যদি খেলে ওপেনার হিসেবেই খেলবে মনে হলো।’

 

Online Reporter ২৫-১১-২০২১ ০৩:২৬ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 36 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত

  

  ঠিকানা :   শামস লিভিং, শহীদবাগ, ঢাকা
(রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সের ২নং গেইটের বিপরীতে)
মোবাইল :   ০১৬১৬-১০৪৪৯৮
  ইমেল :   info@shikkharalo24.com