হাশিম আমলাকে জোর করে মদ খাওয়ানোর চেষ্টা করা হতো!
০৭ ডিসেম্বর, ২০২১ ০৮:০৩ পূর্বাহ্ন

  

হাশিম আমলাকে জোর করে মদ খাওয়ানোর চেষ্টা করা হতো!

Online Reporter
২১-১১-২০২১ ০৪:৪৫ অপরাহ্ন
হাশিম আমলাকে জোর করে মদ খাওয়ানোর চেষ্টা করা হতো!

গত কয়েকমাস ধরেই বর্ণবিদ্বেষের অভিযোগে উত্তাল হয়ে আছে ইংল্যান্ডের ক্রিকেটাঙ্গন। দেশটির ঘরোয়া ক্রিকেটে একের পর এক বর্ণবাদের ঘটনা উঠে আসছে। আজিম রফিকের বিস্ফোরক মন্তব্যের পর এবার রীতিমতো বোমা ফাটালেন সাবেক ক্যারিবীয় তারকা তথা বর্তমান ধারাভাষ্যকার টিনো বেস্ট। ২০১০ সালে ইয়র্কশায়ারে আজিম রফিকের সঙ্গেই খেলেছেন ক্যারিবীয় পেসার। তার দাবি, মুসলিম হওয়া সত্ত্বেও দক্ষিণ আফ্রিকান তারকা ব্যাটসম্যান হাশিম আমলাকে জোর করে মদ্যপান করানো হয়েছিল।

স্কাই স্পোর্টসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে টিনো বেস্ট বলেছেন, 'হাশিম আমলাকে একবার এক ব্যক্তি টানা তিন-চার ঘণ্টা ধরে জোরাজুরি করছিল। প্রত্যেক মিনিটেই সেই ব্যক্তি এটা-ওটা পান করানোর জন্য নাছোড় হয়ে পড়ছিলেন। আর হাশিম বরাবরের মত বিনয়ী হয়ে বলছিল, স্যার আমি পান করিনা। তা সত্ত্বেও সেই ব্যক্তি থামার কোনো লক্ষণই দেখাচ্ছিলেন না। আমি তখন বলতে বাধ্য হই- হাশিম একজন মুসলিম। সে মদ্যপান করে না। প্লিজ তুমি এই জোরাজুরি বন্ধ করো। আমি আর সহ্য করতে পারছি না।'

হাশিম আমলা ধর্মপ্রাণ ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত। জাতীয় দলের হয়ে খেলার সময় নিজের জার্সিতে মদ প্রস্তুতকারক কম্পানির স্পনসরও নেননি। বেস্ট বিবিসি স্পোর্টসকে আরও বলেছেন, ইংলিশ ক্রিকেট সংস্কৃতি পুরোটাই মদ্যপানকে কেন্দ্র করে। দলের অংশ হওয়ার জন্য কাউকে ক্লাবহাউসে গিয়ে ৮-৯ পেগ মদ্যপান করতে বাধ্য করা উচিত নয়। যদি কেউ এই পানীয় সংস্কৃতিতে স্বচ্ছন্দ বোধ না করে, তাহলে বকলমে সে দলের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এটা বর্ণবিদ্বেষ ঘটনাকে আরও প্রভাবিত করছে। আমি কৃষ্ণাঙ্গ হওয়া সত্ত্বেও দলের অংশ হতে চাইতাম। তারা বাকিদের সম্পর্কে যা বলত, তা এখনও শুনলে অবাক হতে হয়।'

 
 
 
 
 
 

Online Reporter ২১-১১-২০২১ ০৪:৪৫ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 48 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত

  

  ঠিকানা :   শামস লিভিং, শহীদবাগ, ঢাকা
(রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সের ২নং গেইটের বিপরীতে)
মোবাইল :   ০১৬১৬-১০৪৪৯৮
  ইমেল :   info@shikkharalo24.com