মরুর বুকে ফাইনালের আগে বৃষ্টি না নামার প্রার্থনাও
০৭ ডিসেম্বর, ২০২১ ০৮:৩০ পূর্বাহ্ন

  

মরুর বুকে ফাইনালের আগে বৃষ্টি না নামার প্রার্থনাও

Online Reporter
১৩-১১-২০২১ ১২:২৮ অপরাহ্ন
মরুর বুকে ফাইনালের আগে বৃষ্টি না নামার প্রার্থনাও

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় দুই হাজার মিটার উঁচুতে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সর্বোচ্চ চূড়া জাবেল জাইস। রাস আল খাইমাহ স্টেটের ওই নির্জন পাহাড়ি জনপদের উঁচু থেকে ক্রমেই উঁচুতে উঠে যাওয়া শুকনো-খটখটে রাস্তাই কিনা কিছুদিন আগে তুমুল বৃষ্টিতে ভিজে যায়। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে এই দেশের আবহাওয়া অধিদপ্তরের পোস্ট করা মরুর বুকে বৃষ্টির সেই ছবিটা বৈজ্ঞানিক সাফল্যের চূড়া ছোঁয়ার ঘোষণাও দিয়ে ফেলেছে এরই মধ্যে। আসল নয়, ওই বৃষ্টি যে কৃত্রিম!

ড্রোন উড়িয়ে এবং রাসায়নিক ছিটিয়ে নামানো বৃষ্টিতে ক্ষণিকের স্বস্তি থাকলেও লম্বা সময় ধরে চলা খরা নিয়েও অস্বস্তি আছে মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশে। তা এমন চরমে পৌঁছেছে যে প্রাকৃতিক বৃষ্টির জন্য সরকারি ঘোষণা দিয়ে শুক্রবার জুমার নামাজের আগে নফল ইবাদত হয়েছে এখানকার মসজিদে মসজিদে। বৃষ্টিহীন মরুর বুকে সাধারণ্যে যখন দ্রুতই বৃষ্টি নামার প্রার্থনা, তখন আরেক দিকে চলছে তা আরো কয়েকটা দিন পিছিয়ে যাওয়ার প্রার্থনাও। এখানে বৃষ্টি হয়ই না বলে ক্রিকেট ম্যাচও ভেস্তে যায় না। এবার সমবেত প্রার্থনার জোরে দ্রুত বৃষ্টি নেমে গেলে তো বিপদ। জিমি নিশাম-ডেরিল মিচেল-মার্কাস স্টোয়নিস-ম্যাথু ওয়েডদের মানবীয় কীর্তিধন্য দুটি সেমিফাইনাল যখন খুঁজে নিয়েছে দুই ফাইনালিস্টকে, তখন এক দিন পরই আরেকটি ট্রান্স-তাসমান বিশ্বকাপ ফাইনালের আগে বৃষ্টি না নামার প্রার্থনা তো থাকবেই।

‘আরেকটি’ ফাইনালই কারণ তাসমান সাগরের এপার-ওপারের দুই দেশ ২০১৫-র ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালেও মুখোমুখি হয়েছিল একে অন্যের। কোনো বিশ্ব আসরের শিরোপার লড়াইয়ে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের দেখা হওয়াটাও ছিল সেবারই প্রথম। ফাইনালপূর্ব আবহও ছিল তীব্র লড়াইয়ের বারুদমাখাই। যদিও মেলবোর্ন ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হওয়া সেই ম্যাচ প্রত্যাশা আর প্রাপ্তির মাঝে রেখে দিয়েছিল বিপুল ব্যবধানই। বড্ড একপেশে লড়াইয়ে উড়তে থাকা কিউইদের মাটিতে নামিয়ে পঞ্চমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপের ট্রফি উঁচিয়ে ধরেছিল অস্ট্রেলিয়াই।

তবে রবিবার দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠেয় ফাইনালের মাঝখানের ছয় বছরে ধারাবাহিক সাফল্যে নিউজিল্যান্ডও এমন জায়গায় যে এবার ফেভারিটের তকমাটা শোভা পাচ্ছে কেন উইলিয়ামসনদের শরীরেই। কারণ এই সময়ের মধ্যে পাঁচটি বিশ্ব আসরের চতুর্থ ফাইনাল খেলতে যাচ্ছেন তাঁরা। ২০১৬-র টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডের কাছে হেরে ছিটকে যাওয়া দল এর আগে-পরে একেবারে শেষ পর্যন্ত গিয়ে হতাশায় ডুবেছে দুইবার। ২০১৫-র পর ২০১৯-এও। সেবার ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে ইংল্যান্ডের সঙ্গে সুপার ওভারে ম্যাচ টাই করেও প্রতিপক্ষের চেয়ে কম বাউন্ডারি মারার হিসাব তাদের হারের বিষাদে ডোবায়।

সীমিত ওভারের বিশ্বকাপে না হলেও তারা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার অনির্বচনীয় অনুভূতির জোয়ারেও ভেসেছে এরই মধ্যে। গত জুলাইতে সাউদাম্পটনে ভারতকে হারিয়ে জিতেছে প্রথম বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা।

কাজেই ফাইনাল জিততে না পারার মানসিক বাধা পেরিয়েই এবার টি-টোয়েন্টির ট্রফি ছোঁয়ার দুয়ারে এসে দাঁড়িয়েছে তারা। গত অর্ধযুগের পারফরম্যান্স ও ধারাবাহিকতায় সবচেয়ে এগিয়ে থাকা দলের বিপক্ষে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে নামার অপেক্ষায় যে অস্ট্রেলিয়া, তারা চূড়ান্ত সাফল্যের চৌকাঠে আসতে অবশ্য নিয়েছে লম্বা বিরতিই। যে বিরতিও অর্ধযুগেরই। ২০১৫-র ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর আর কোনো ফাইনালেই উঠতে পারেনি তারা। তবে এই তথ্য-পরিসংখ্যান তো আর বিনা লড়াইয়ে হার মানার নিশ্চয়তা দিয়ে ফেলছে না। বরং এই আসরের সবচেয়ে ধারাবাহিক দল পাকিস্তানকে সেমিফাইনালে যেভাবে হারিয়ে এসেছে তারা, তাতে এবারও ম্যাচপূর্ব আবহ জমজমাট লড়াইয়ের বারুদ ঠাসাই।

এখন বৃষ্টি এসে তাতে জল ঢেলে না দিলেই হয়!

 

Online Reporter ১৩-১১-২০২১ ১২:২৮ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 39 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত

  

  ঠিকানা :   শামস লিভিং, শহীদবাগ, ঢাকা
(রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সের ২নং গেইটের বিপরীতে)
মোবাইল :   ০১৬১৬-১০৪৪৯৮
  ইমেল :   info@shikkharalo24.com